Uses & Benefits of Raw Unfiltered Apple Cider Vinegar With Mother

আপেল সাইডার ভিনেগার উৎসেচন পদ্ধতির মাধ্যমে তৈরি করা হয় আপেল সাইডার হতে। এতে প্রচুর স্বাস্থ্যকর প্রো-বায়োটিক এবং এনজাইমসমূহ উৎপন্ন হয়। এই ভিনেগারটিতে আপেল সাইডার এবং আপেল জুস থেকে অনেক কম পরিমাণ চিনি এবং ক্যালরি বিদ্যমান। কার্যত, আপেল সাইডার ভিনেগারের উপকারিতা পেতে দৈনিক শুধুমাত্র ২-৩ টেবিল চামচ ভিনেগারই যথেষ্ট। প্রতি টেবিল  চামচে রয়েছে ৩-৫ ক্যালরি।

কিন্তু ব্র্যাগস এর অরগানিক আপেল সাইডার ভিনেগারই কেন? কারণ ব্র্যাগস সম্পূর্ণ অরগানিক এবং অপরিস্রুত, এতে স্বাস্থ্যের ক্ষতিসাধনকারী কোন জেনেটিক্যালি পরিবর্তিত জীবাত্ত বা কৃত্রিম ক্যামিকাল নেই। ব্র্যাগসের আপেল সাইডার ভিনেগার অপ্রক্রিয়াজাত এবং উত্তাপ প্রক্রিয়া মুক্ত। এর মধ্যে রয়েছে বিশেষ ধরণের এক গুচ্ছ প্রোটিন, এনজাইম এবং উপকারী ব্যাকটেরিয়া যা একত্রে 'মাদার' নামে পরিচিত। এই ভিনেগারে মাদার অটুট থাকে যা সাধারণত অন্য ভিনেগারে প্রায়শই প্রক্রিয়াজাতকরণের সময় অপসারিত হয়ে যায়।

অরগানিক আপেল সাইডার ভিনেগারের ৬ টি উপকারিতা

১) রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে

একটি গবেষণা অনুযায়ী, সাদা পাউরুটি খাওয়ার পর, আপেল সাইডার ভিনেগার সেবনের কারণে রক্তে শর্করার পরিমাণ গড়ে ৩১ শতাংশ হ্রাস পায়।

২) শরীরের ওজন কমায়

একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে, অংশগ্রহণকারীরা খাদ্যাভাস বা জীবনযাত্রায় পরিবর্তন না করে, শুধু দৈনিক ২ টেবিল চামচ আপেল সাইডার ভিনেগার সেবন করায়, ১২ সপ্তাহে তাঁদের ওজন ৪ পাউন্ড করে হ্রাস পেয়েছে।

৩) কলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে

একটি প্রাণীভিত্তিক গবেষণায় পাওয়া ফলাফল অনুযায়ী, ইঁদুরকে সম্পূরক হিসেবে আপেল সাইডার ভিনেগার দেওয়ার পর তা ক্ষতিকর এল ডি এল কলেস্টেরল হ্রাস এবং উপকারি এইচ ডি এল কলেস্টেরল বৃদ্ধি করে।

8) ত্বকের স্বাস্থ্য উন্নত করে

আরেকটি গবেষণালব্ধ তথ্য অনু্যায়ী, একনিজনিত ক্ষত ও দাগের উপর ৩ মাস ধরে নিয়মিত আপেল সাইডার ভিনেগার প্রয়োগের পর ত্বকের গঠন বিন্যাস, পিগমেন্টেশন এবং বাহ্যঅবস্থার উন্নতি সাধন হয় এবং ত্বকের দাগ অনেক হালকা হয়ে যায়।

৫) উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে

একটি প্রানীভিত্তিক গবেষনায় দেখা যায় যে, ইঁদুরকে এসিটিক এসিড, যা হচ্ছে আপেল সাইডার ভিনেগারের একটি মূল উপাদান, দেওয়ার পর রক্তচাপ হ্রাস পায়।

৬) এসিড রিফ্লাক্সের উপসর্গ উপশম করে

আপেল সাইডার ভিনেগার গ্রহণ করলে তা এসিড রিফ্লাক্সের উপসর্গ উপশম করে। কারণ, পরিপাকনালীতে এসিডের পরিমাণ বৃদ্ধি পেলে তা এসিড ব্যাক ফ্লো প্রতিরোধ করে। তবে, আলসারের রূগীদের জন্য এটি ক্ষতিকর হতে পারে।

 

 আনফিল্টারড আপেল ভিনেগার খাওয়ার নিয়ম:

দুই টেবিল চামচ Organic Raw With mother Apple Cider Vinegar (ACV) ২৫০ মিলি হালকা গরম বিশুদ্ধ পানি এর সাথে ৫০ গ্রাম সমপরিমান আদার রস, ১টি লেবুর ৪/১ ভাগের রস ও ১ টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে দিনে ২ - ৩ বার খাবেন।

 

আপেল সাইডার ভিনেগারের  কাজ ও ব্যবহার

১) অন্ত্র স্বাস্থ্যের উন্নতি সাধনে

আপেল সাইডার ভিনেগার বেছে নেওয়ার মাধ্যমে আপনি আপনার প্রাত্যহিক আহারের সাথে যোগ করতে পারেন এক ডোজ উপকারি ব্যাকটেরিয়া। এই ব্যাকটেরিয়া আপনার পরিপাকতন্ত্রের স্বাস্থ্যকে উন্নত করে, এক গুচ্ছ অন্ত্র ব্যাকটেরিয়ার উপকারিতা যোগ করে, যেমন বর্ধিত অনাক্রমত্য বা ইমুউনিটি, খাবার পরিপাক এবং পুষ্টি শোষণের ক্ষমতা। প্রত্যকদিন খাবারের আগে ১-২ টেবিল চামচ ভিনেগার গ্রহণ করুন, ১ কাপ পানির সাথে মিশিয়ে। আপেল সাইডার ভিনেগার সরাসরি পান করবেন না।

২) রোদে পোড়া ত্বক প্রশমিত করতে

সূর্যের প্রখর তাপের নিচে অনেকক্ষণ সময় কাটানোয় ত্বক পোড়ে গিয়েছে? ভয় নেই। আপেল সাইডার ভিনেগার রোদে পোড়া ত্বকের জন্য একটি চমৎকার প্রাকৃতিক ওষুধ। বাথ টাব অথবা এক বালতি কুসুম গরম পানিতে ১ কাপ আপেল সাইডার ভিনেগার,  ১/৪ কাপ খাঁটি, বিশুদ্ধ নারিকেল তেল এবং সামান্য পরিমাণ ল্যাভেন্ডার তেল মিশিয়ে নিন এবং সেই পানিতে আক্রান্ত অংশ কিছুক্ষণ ডুবিয়ে রাখুন। এতে রোদ পোড়া কমবে এবং জ্বালা প্রশমিত হবে।

৩)ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণ করতে

আপেল সাইডার ভিনেগার আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে এমনকি ইন্সুলিন সংগবেদনশীলতাও বৃদ্ধি করে থাকে। ১-২ টেবিল চামচ ভিনেগার ১ কাপ পরিমাণ পানিতে মিশ্রিত করে, খাবার খাওয়ার পূর্বে পান করলে তা রক্তের শর্করার মাত্রা সুস্থিত রাখবে।

8) ছত্রাকের বিরুদ্ধে লড়াই

বিভিন্ন ছত্রাকজনিত ইনফেকশন বা ইস্ট ইনফেকশনসমূহ আপেল সাইডার ভিনেগারের সাহায্যে খুব সহজেই চিকিৎসা করা সম্ভব। সবচেয়ে কার্যকরী পদ্ধতির মধ্যে একটি হচ্ছে আপেল সাইডার ভিনেগার দিয়ে তৈরী এন্টি- ফাংগাল স্প্রে। অন্যান্য ছত্রাক প্রতিরোধী উপাদানের সাথে একত্রিত হয়ে এটি উপসর্গ হ্রাস করে এবং দ্রুত উপশম করে।

৫) ত্বক সুন্দর এবং প্রাণবন্ত করে

ত্বকের জন্য আপেল সাইডার ভিনেগারের উপকারিতাসমূহের মধ্যে রয়েছে এক্‌নি ট্রিটমেন্ট এবং দাগ নিবারণ। এন্টি-ব্যাক্টেরিয়াল এবং আরোগ্যকারী বৈশিষ্ট্যসমূহের জন্য পরিচিত আপেল সাইডার ভিনেগার একনি উৎপন্নকারী ব্যাকটেরিয়া ধবংসের মাধ্যমে ত্বককে রক্ষা করে। ত্বককে সুস্থ ও প্রাণবন্ত রাখতে আপেল সাইডার ভিনেগার দিয়ে তৈরি টোনার ব্যবহার করুন।

৬) ত্বকের রক্ত চলাচল বৃদ্ধি করে

কিছু সংখ্যক গবেষণায় পাওয়া তথ্যানুসারে, শরীরের বর্ধিত শিরা সমস্যায়, আক্রান্ত স্থানে আপেল সাইডার ভিনেগার ব্যবহারে উপসর্গ উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পেয়ে থাকে। উইচ্‌ হেজেল তেলের সাথে ভিনেগার মিশিয়ে মিশ্রন তৈরি করুন। এই মিশ্রণটি বর্ধিত শিরার অংশে বৃত্তাকার গতিতে, ঘষে ঘষে লাগিয়ে নিন।এতে করে ত্বকের রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পাবে এবং উপসর্গ হ্রাস পাবে।

৭) আঁচিলের চিকিৎসা

আঁচিলের সমস্যায় ভুগছেন? কোনভাবেই দূর করা যাচ্ছে না? একটি তুলার বল আপেল সাইডার ভিনেগারে চুবিয়ে নিয়ে, সরাসরি আঁচিলের উপর রেখে, ব্যান্ডেজ দিয়ে বেঁধে ফেলুন। রাত্রিকালীন এভাবেই রাখুন এবং সকালে উঠে খুলে ফেলুন। কয়েকদিন নিয়মিত ব্যবহারের পর আঁচিল কমে যাবে।

৮) পয়জন আইভি র‍্যাশ দূরীকরণ

পয়জন আইভি র‍্যাশের জন্য একটি প্রাকৃতিক ওষুধ হল আপেল সাইডার ভিনেগার। এর কারণ এতে রয়েছে পটাসিয়াম, যা পয়জন আইভিজনিত ত্বকের স্ফীতি কমাতে পারে। আক্রান্ত স্থানে এক চা চামচ পরিমাণ আপেল সাইডার ভিনেগার সরাসরি লাগিয়ে নিন। সম্পূর্ণ কমে না যাওয়া পর্যন্ত দিনে কয়েকবার ব্যবহার করুন।

৯)পোকামাকড় দূর করতে

পোকামাকড়ের কামড় থেকে রক্ষা পেতে পানির সাথে আপেল সাইডার ভিনেগার মিশিয়ে ঘরেই স্প্রে তৈরি করে নিন।

১০) মৌসুমি এলার্জি প্রতিরোধে

অনেকেই মৌসুমি এলার্জি প্রতিরোধে আপেল সাইডার ভিনেগার ব্যবহার করে থাকেন। ঋতু বদলের সময় এলার্জির প্রকোপ থেকে মুক্তি পেতে ২ টেবিল চামচ আপেল সাইডার ভিনেগার এক গ্লাস পানিতে মিশিয়ে পান করুন।

১১) প্রাকৃতিক ডিওডোরেন্ট

শরীরের বাহুমূল বা বগল ব্যাকটেরিয়ার প্রজনন স্থান, যা শরীরের দূর্গন্ধকে আরো বাড়িয়ে দেয়। আপেল সাইডার ভিনেগার শক্তিশালী এন্টি-ব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্যের অধিকারী এবং চমৎকার প্রাকৃতজাত ডিওডোরেন্ট। এটি ব্যবহারের সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি হচ্ছে, আঙুলের সাহায্যে বাহুমূলে আলতোভাবে লাগিয়ে নেওয়া। এটি দুর্গন্ধ প্রতিরোধ করে আপনাকে রাখতে সতেজ ও সুবাসিত।

১২) চুলকে করে উজ্জ্বল

নিস্তেজ ও শুষ্ক চুলকে প্রাণবন্ত করে তুলতে আপেল সাইডার ভিনেগার ব্যবহার করুন। পানির সাথে আপেল সাইডার ভিনেগার মিশিয়ে মিশ্রণটি দিয়ে আলতোভাবে চুল ধুয়ে ফেলুন। এটি চুলের শুষ্কতা প্রতিরোধ করবে, চুলকে করবে সতেজ, উজ্জ্বল এবং দ্যুতিময়।

১৩) ওজন হ্রাস বৃদ্ধি করে

আপেল সাইডার ভিনেগার খাবারের রুচিতে পরিতৃপ্তি বাড়িয়ে এবং অপ্রয়োজনীয় ক্ষুদা নিবারণের আকাঙ্ক্ষা রোধ করে ওজন কমাতে সাহায্য করে। আপনার প্রিয় স্মুদি বা ভেজিটেবল জুসের সাথে ভিনেগার যোগ করে তৈরী করে নিন ওয়েট লস ড্রিংক।

১৪) এসিড রিফ্লাক্স এবং বুক জ্বালা নিবারণ

অনেকেরই পাকস্থলীতে এসিডের মাত্রা স্বাভাবিকের তুলনায় কম থাকায় এসিড রিফ্লাক্সে ভোগে থাকেন। আপেল সাইডার ভিনেগার পাকস্থলীর এসিডের মাত্রা বৃদ্ধির মাধ্যমে, অন্ননালীতে এসিডের বিপরীত প্রবাহ রোধ করে এবং বুক জ্বালা প্রশমিত করে। আহারের পূর্বে আপেল সাইডার ভিনেগার গ্রহণ করলে সবচেয়ে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়। এক কাপ পরিমাণ পানিতে, ১-২ টেবিল চামচ ভিনেগার মিশিয়ে পান করুন।

১৫) পি এইচ লেভেলের ভারসাম্য রক্ষা

যদিও আপেল সাইডার ভিনেগারের মূল উপাংশ এসেটিক এসিড, বৈশাষ্ট্যানুসারে আম্লিক কিন্তু শরীরের ভিতর এর একটি ক্ষারক প্রভাব রয়েছে। নিয়মিত পরিমাণ অনুযায়ী আপেল সাইডার ভিনেগার সেবন করলে তা শরীরের পি এইচ এর ভারসাম্য বজায় রেখে স্বাস্থ্য অটুট রাখতে সাহায্য করবে।

১৬) গৃহস্থালির পরিস্কারক হিসেবে

সমপরিমাণ আপেল সাইডার ভিনেগার ও পানি মিশিয়ে তৈরি করে নিন গৃহস্থালি পরিস্কারক দ্রব্য। পদ্ধতিটি খুবই সহজ ও ফলপ্রসূ। আপেল সাইডার ভিনেগারে উপস্থিত এন্টি- ব্যাকটেরিয়াল ক্ষমতা জীবাণুনাশ করে ঘরকে রাখে পরিষ্কার।

১৭) দাঁত সাদা ও ঝকঝকে করতে

আপেল সাইডার ভিনেগার সম্পূর্ন প্রাকৃতিকভাবেই আপনার হাসিকে উদ্ভাসিত ও দাঁতকে করে তুলতে পারে সাদা ও ঝকঝকে। সবচেয়ে ভালো ফলাফল পেতে, টুথব্রাশে সামান্য পরিমাণ আপেল সাইডার ভিনেগার লাগিয়ে দাঁত ভালো করে মেজে নিন আর এরপর পানি দিয়ে ভালো করে কুলি করে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এরপর আঙুলের ডগার সাহায্যে অল্প পরিমাণ আপেল সাইডার ভিনেগার আলতো করে দাঁতে লাগিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ পর আবারো পানি দিয়ে কুলি করে মুখ ধুয়ে ফেলুন। তবে, খেয়াল রাখা দরকার এই পদ্ধতির অতিরিক্ত ব্যবহার দাঁতের এনামেলকে ক্ষয় করে ফেলে সুতরাং সহনীয় মাত্রায় ব্যবহার করুন ও অত্যাধিক ব্যবহার পরিহার করুন। যদি আপনার দাঁতে, মাড়িতে বা মুখের ভিতর কোন প্রকার ক্ষয়, ক্ষত বা সংবেদনশীলতা থাকে তবে দন্ত চিকিৎসকের পরামর্শ ব্যতীত এই পদ্ধতি ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

১৮) সর্দি কাশি ও ঠান্ডা প্রতিরোধে

ঠান্ডা ও সর্দি কাশি তাড়াতাড়ি সারিয়ে তুলতে আপেল সাইডার ভিনেগার গ্রহণ করুন। এতে বিদ্যমান উপকারী ব্যাকটেরিয়া শরীরের ইমিউন সিস্টেমকে করে তুলে অধিক কার্যকর এবং শক্তিশালী।

১৯) উচ্চ রক্তচাপ কমাতে

প্রতিদিন ১ টেবিলচামচ আপেল সাইডার ভিনেগার, ১ কাপ পানিতে মিশিয়ে পান করলে উচ্চ রক্তচাপ কমে ও হৃদপিণ্ড হয় শক্তিশালী।

২০) ডিটক্সিফিকেশনে সহায়তে করে

আপেল সাইডার ভিনেগার পি এইচ এর ভারসাম্য বজায় রাখা, লসিকনালীর নিষ্কাশন উন্নত করে এবং রক্ত চলাচল বৃদ্ধির মাধ্যমে শরীরের ডিটক্সিফিকেশন প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করে।

২১)হেঁচকি থেকে মুক্তি পেতে

এক চা-চামচ আপেল সাইডার ভিনেগার ১ কাপ পরিমাণ পানিতে মিশিয়ে নিন। এরপর পান করে ফেলুন।  অতিরিক্ত উত্তেজিত স্নায়ু হেঁচকির জন্য দায়ী। আপেল সাইডার স্নায়ু প্রশমিত করে হেঁচকি উঠা বন্ধ করতে সাহায্য করে।

২২) গলাব্যথা দূর করতে

আপেল সাইডার ভিনেগার ব্যবহারে গলাব্যাথা ও খুসখুস দূর হয়। ইনফেকশন বিস্তার হওয়া প্রতিরোধ করবে এটি। কারণ অ্যাসিডযুক্ত পরিবেশে জীবাণুগুলো টিকতে পারে না। ১/৪ কাপ কুসুম গরম পানিতে ১/৪ কাপ আপেল সাইডার  ভিনেগার মিশিয়ে এক ঘণ্টা পর পর কুলকুচা করলে প্রশমিত হবে।

২৩) বন্ধ নাক পরিষ্কারে

আপেল সাইডার ভিনেগারে রয়েছে পটাশিয়াম, যা মিউকাসকে পাতলা করতে সাহায্য করে এবং অ্যাসিটিক অ্যাসিড জীবাণুগুলো ধ্বংস করে, যা আপনার নাক বন্ধ হওয়া সমস্যা দূর করবে। এক গ্লাস পানিতে এক চা-চামচ আপেল সাইডার ভিনেগার মিশিয়ে পান করুন, যা আপনার সাইনাস সমস্যাজনিত নাক দিয়ে পানি পড়া বন্ধ করবে।

২৪) খুশকি দূর করতে

মাথার ত্বকের শুষ্কতা ও খুশকি দূর করতে সমপরিমাণ পানি ও আপেল সাইডার ভিনেগার মিশিয়ে নিন। এরপর মিশ্রণটি আঙুলের ডগার সাহায্যে ভালো করে ম্যাসাজ করে চুলের গোঁড়ায় লাগিয়ে নিন। ৩০ মিনিট থেকে ১ ঘণ্টা মাথায় রেখে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। এছাড়াও, শ্যাম্পু করার পূর্বে পরিমাণমত আপেল সাইডার ভিনেগার শ্যাম্পুর সাথে মিশিয়ে তা ব্যবহার করুন। আরেকটি পদ্ধতি হচ্ছে ১/৪ টেবিল চামচ ভিনেগার, ১/৪ কাপ পানিতে মিশিয়ে ১টি বোতলে ভরে মাথার স্কাল্পে স্প্রে করে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২ বার এভাবে ব্যবহার করা যায়।

২৫) এনার্জি ড্রিংক হিসেবে

১-২ টেবিল চামচ আপেল সাইডার ভিনেগার, ১ কাপ পানি, ১ টেবিল চামচ অপরি্রিস্রু খাঁটি মধু, ১ চা চামচ লেবুর রস এবং অল্প পরিমান আদা কুচি বা আদার গুঁড়ো এক সাথে মিশিয়ে নিলেই তৈরি হয়ে যাবে ঘরে তৈরি প্রাকৃতিক এনার্জি ড্রিংক যা বাজারের ক্যামিকালযুক্ত ড্রিংক্স এর চেয়ে অনেক বেশি সুসাস্থ্যকর ও পার্শপ্রতিক্রিয়াবিহীন।

সূলভ দামে পণ্যটি কেনার জন্য আমাদের ওয়েবসাইট  www.gotimoy.com পরিদর্শন করুন অথবা এই নম্বরে ০১৯১২০৬৩৯৯৮ ফোন করুন। আমাদের অনলাইন ওয়েবসাইটে সব সময় আপেল সিডার ভিনেগার পাওয়া যায়। 

Leave a Reply